৮ আগস্ট, ২০১৫

প্রকৃতি ও মানুষ

ইচ্ছের নদী পার হয়ে মাঝে মধ্যে আমি সমুদ্র হয়ে যাই
দূরবর্তী মেঘের সাথে করি পত্রমিতালী
বন্ধুত্বের আশায় জীবনের যতো স্মৃতি কথা লিখে রাখি মাঝির বুকে
পাড় ভাঙ্গা জলের সংসারে আঁধারে জ্বালিয়ে দিই জোনাকীর আলো
মৌন বাতাসে উড়িয়ে দেই শব্দের খইমালা
মানবতার দৃষ্টান্ত দেখার জন্যে মাঝে মধ্যে আমি পাহাড় হয়ে দাঁড়িয়ে যাই
মৃত চাঁদের জ্যোৎস্নায় খুঁজে চলি ক্ষুদ্র জীবনের অর্থ।
যারা চলে যেতে চায় তারা চলে যাক
মিছে মায়ার বাঁধনে জড়িয়ে বিভ্রম ছড়ানো কি প্রয়োজন
পোড়া শহরের সমস্ত গ্যালারি জুড়ে শোনা যায় অতৃপ্ত আত্মার হাহাকার
সঙ্গীবিহীন বৃষ্টি, বধ্যভূমির বাতাস, পুচ্ছবিহীন ময়ূরের নৃত্য এসব
দেখতে দেখতে আমরা সবাই ফিরে যাচ্ছি আদিম সত্ত্বায়
মাঝে মধ্যে আমি দিগন্তের নীল আকাশ ছুঁয়ে যাই
আদিগন্ত বিস্তৃত মেঘের মাঝে ক্নান্ত পাখির মতো খুঁজি আশ্রয়
অবাক বিস্ময়ে আমি দেখি শ্রেষ্ঠ জীব! মানুষের চেয়ে প্রকৃতি কতটা ভাল
কোন হিংসা-দ্বেষ নেই, পায়ের সাথে পায়ের ঠোকাঠুকি নেই
আপন রীতি অনুযায়ী আজীবন বয়ে নিয়ে যায় মানুষের জঞ্জাল।

কোন মন্তব্য নেই: